Home পশ্চিমবঙ্গ Mousuni Island Tour | how to go mousuni island from kolkata | মৌসুনী দ্বীপ ভ্রমন

Mousuni Island Tour | how to go mousuni island from kolkata | মৌসুনী দ্বীপ ভ্রমন

মৌসুনী দ্বীপ ভ্রমন | Mousuni Island 2023 | Mousuni Island Tour | Backpackers Camp Mousuni

by Swaccha Barta
Mousuni Island

Mousuni Island প্রকৃতিপ্রেমী এবং ফটোগ্রাফারদের আনন্দ। বালিয়ারা সমুদ্র সৈকতের মনোরম সমুদ্রের দৃশ্য, পাতিবুনিয়ার নদীমাতৃক প্রাকৃতিক দৃশ্য, কাকড়ামারির চোরে পাখির বিচিত্রতা, সাধারণ গ্রামীণ জীবন, মন্ত্রমুগ্ধ সূর্যাস্ত – এই এবং আরও অনেক কিছু নিয়ে তৈরি হয়েছে Mousuni Island ছবির অ্যালবাম।

Mousuni Island ( মৌসুনী দ্বীপ ) কোথায় অবস্থিত?

গঙ্গা নদী ও হুগলি নদীর ঠিক যেখানে সাগর মিশেছে সেখানে তৈরি হয়েছে বেশ কিছু দ্বীপ .  এর মধ্যে সাগর দ্বীপ আমাদের কাছে পরিচিত। এই সাগরদ্বীপের একদম দক্ষিণ প্রান্তে কপিল মুনির আশ্রম আর এখানেই হয় গঙ্গাসাগরের মেলা .  এই সাগরদ্বীপের পূর্ব দিকে অবস্থান করেছে Mousuni Island. আর এই মৌসুমী দ্বীপের দক্ষিণ পূর্বে রয়েছে বকখালি এবং আরও পূর্বদিকে সুন্দরবন. মৌসুনি দ্বীপ ও সাগরদ্বীপের মাঝে বয়ে চলা হুগলি নদীর এই চ্যানেলটিকে বলা হয় মুড়িগঙ্গা. আর মৌসুমী দ্বীপের এই ছিনাই নদী মৌসুমী দ্বীপকে আলাদা করেছে। মৌসুমী দ্বীপে যেতে গেলে আপনাকে এই ছিনাই নদী পার করতে হবে.  সিনাই নদী থেকে মৌসুমী দ্বীপে যাওয়ার জন্য আছে অনেক ফেরিঘাট। এরমধ্যে বাগডাঙ্গা ফেরিঘাট ও হুজুতের ফেরিঘাট সকলে বেশি ব্যবহার করে |

About Of Mousuni Island ( মৌসুনী দ্বীপ ) – 

আজ আপনাদের নিয়ে যাব এমন একটি বিচে যেখানে থাকার জন্য কোন হোটেল পাবেন না রাত কাটাতে হবে তাবুতে খেতে হবে ঝলসানো মাংস। সেটাও আবার গাছ তলায় বসে। সেখানে সমুদ্রে স্নান না করে জেলেদের নৌকা নিয়ে ভেসে পড়বেন এমন একটি দ্বীপের উদ্ধেশ্যে যেখানে গাছপালা সব দাঁড়িয়ে আছে জলের মধ্যে আর এইসব অভিনব ব্যাপার কলকাতা থেকে মাত্র পাঁচ ঘন্টা দূরে | কলকাতার এত কাছে এত নির্জনে এমনভাবে প্রকৃতিকে অনুভব করার জন্য সেরা গন্তব্যস্থল Mousuni Island . বিস্তারিত তথ্য নিচে আলোচনা করা হলো –

What is the best time to visit Mousuni Island ( মৌসুনী দ্বীপ ) ?

এক কথায় উত্তর হল যখন ঝড় বৃষ্টি নেই , কারণ ঝড় বৃষ্টির সময় মৌসুনি দ্বীপ থেকে সমুদ্রের মাঝে জম্বু দ্বীপে নৌকা সফর করতে পারবেন না , আর সে ক্ষেত্রে মৌসুমী দ্বীপে বেড়ানোর একটা বড় অভিজ্ঞতা থেকে বঞ্চিত হবেন,  তাই মৌসুমী দ্বীপে ঘোরার জন্য সবথেকে ভালো সময় অক্টোবর থেকে মার্চ মাস,  কিন্তু গ্লোবাল ওয়ার্মিংয়ের জন্য আবহাওয়ার অনেক পরিবর্তন হয়েছে বিশেষ করে নিম্নচাপ অনেক বেড়ে গেছে তাই   মৌসুনি দ্বীপে ট্যুর প্লান করার আগে ওয়েদার ফোরকাস্ট অবশ্যই দেখে নেবেন। আকস্মিক নিম্নচাপের আশঙ্কা থাকলে মৌসুমী দ্বীপে পরিকল্পনা অবশ্যই সাময়িকভাবে বাতিল করবেন।

Mousuni Island ( মৌসুনী দ্বীপ ) কিভাবে যাবেন ?

মৌসুমী দ্বীপে অনেক ভাবেই যাওয়া যায় . শিয়ালদা থেকে ট্রেনে অথবা ধর্মতলা থেকে বাসে অথবা আপনারা বাইক নিয়ে যেতে পারেন .

 ট্রেনে মৌসুমী দ্বীপে যাওয়ার জন্য আপনাকে প্রথম শিয়ালদা  স্টেশনের সাউথ সেকশন থেকে নামখানা লোকাল ধরে নামখানায় যেতে হবে। শিয়ালদা থেকে নামখানা স্টেশনের টিকিট ভাড়া মাত্র ৩০ টাকা. আর সময় লাগে মাত্র তিন ঘন্টার মত,  নিচে শিয়ালদা থেকে নামখানা ট্রেনের সময়সূচী দিয়ে দিলাম |

Mousuni Island

Mousuni Island

সারাদিনে অনেকগুলি ট্রেন আছে,  কিন্তু আপনারা চেষ্টা করবেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব সকাল সকাল শিয়ালদা থেকে ট্রেন ধরে নিতে.  আগে নামখানা থেকে মৌসুমী দ্বীপে যাওয়ার জন্য দুটো নদী   পারাপার করতে হতো। একটা নদী হল হাটানিয়া নদী আর একটা চেনাই নদী,  কিন্তু এখন এই নদীর উপর ব্রিজ তৈরি হয়ে গেছে তাই এখন শুধুমাত্র চিনাই নদী নৌকো করে  পারাপার করতে হয়। আগেই বলেছি এই চেনাই নদী পার করতে গেলে দুটি ঘাট ব্যবহৃত হয় একটি হল হুজুরের ফেরিঘাট  এবং আরেকটি হলো বাগডাঙ্গা ফেরিঘাট. 

ট্রেনে করে আসলে বাগডাঙ্গা ফেরিঘাট দিয়ে যাওয়াই সুবিধাজনক, । নামখানা রেলস্টেশন থেকে বাগডাঙ্গা ফেরিঘাট যাওয়ার জন্য প্রথম স্থান থেকে টোটো ধরে চলে আসুন নামখানা বাস স্ট্যান্ড টোটো ভাড়া জনপ্রতি 10 টাকা। নামখানা বাস স্ট্যান্ড থেকে বাগডাঙ্গা ফেরিঘাটে যাওয়ার জন্য আছে ম্যাজিক গাড়ি ভাড়া ২৫ টাকা এবং পৌছাতে সময় লাগে প্রায় ৩০ মিনিট . ম্যাজিক গাড়ি আপনাকে দুর্গাপুর ঘাটে পৌঁছে দেবে . ঠিকই শুনছেন ঝিনাই নদীর এই পাড়ের  ঘাটটির নাম বাগডাঙ্গা ঘাট, । আপনিও ম্যাজিক গাড়িকে বাগডাঙ্গা বলবেন. এখান থেকে ছিনাই নদী পারাপার করতে জনপ্রতি তিন টাকা নৌকা ভাড়া. ঝিনাই নদীর পেরিয়ে এসে আপনি অনেক টোটো পাবেন .  জনপ্রতি ৩০ টাকা ভাড়া নিয়ে  সরাসরি পৌঁছে দেবে যে ক্যাম্পে আপনার বুকিং আছে সেই ক্যাম্পে. 

এবারে আসি কিভাবে আপনি ধর্মতলা থেকে বাসে করে মৌসুম্বীপে আসবেন,  এক্ষেত্রে ধর্মতলা থেকে সরাসরি বাস নামখানা তে আসতে পারেন ,  পশ্চিমবঙ্গ সরকারের যে বাসগুলি চলে সেই বাস ধরে মাত্র ৮৫ টাকা ভাড়াতে নামখানা চলে আসুন এক্ষেত্রে সময় লাগে সাড়ে তিন ঘন্টা  থেকে ৪ ঘন্টা। 

Mousuni Island ( মৌসুনী দ্বীপ ) থাকবেন কোথায় ? 

মৌসুমী দ্বীপে থাকার জন্য কোন হোটেল নেই,  আছে কিছু ট্রাভেলার্স ক্যাম্প . প্রকৃতির ভারসাম্য বজায় রাখা ও তার  পাশাপাশি রোমাঞ্চকর স্বাদ উপভোগ করার সুযোগ করে দেওয়ার উদ্দেশ্যে পর্যটকদের থাকার জন্য এই ক্যাম্প গুলিতে আছে টেন্ট বা তাবু , আর mard হাউজ বা মাটির বাড়ি . তবে মৌসুমী দ্বীপে আসলে অবশ্যই তাবু বা টেন্ট এ থাকার চেষ্টা করবেন .  এখানে সমস্ত ক্যাম্পে আছে এক রাত দুই দিন এর  রোমাঞ্চকর ট্যুর প্যাকেজ , যেখানে রাতে তাবুতে  রাত কাটানো,  খাওয়া-দাওয়া , বন্ ফায়ার . 

 Why is Mousuni Island ( মৌসুনী দ্বীপ ) famous?

ব্যতিক্রমী প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এবং চমত্কার প্যানোরামিক ভিস্তার পাশাপাশি, মৌসুনি দ্বীপটি রাজ্যের একটি গোপনীয় গোপনীয়তা এবং এটি খুব কম লোকই জানে যা স্থানটিতে শান্তি এবং শান্তকে ব্যাখ্যা করে। এটিকে পাখি পর্যবেক্ষকদের স্বর্গ হিসাবেও বিবেচনা করা হয় কারণ শীতের জন্য প্রচুর পাখি এখানে চলে আসে।

Natural Attractions on Mousuni Island:

সৈকত: সৈকতগুলিতে স্ফটিক স্বচ্ছ জল, সাদা বালি এবং অত্যাশ্চর্য সূর্যাস্ত রয়েছে।

ক্যাম্পিং: সমুদ্র সৈকতের পাশে রাতে ক্যাম্পিং করার জন্য মৌসুনি দ্বীপ অন্যতম সেরা জায়গা।

বনফায়ার এবং বারবেকিউ: রাতে বন্ধুদের সাথে বনফায়ার এবং বারবেকিউ একটি আশ্চর্যজনক অভিজ্ঞতা।

Which is better, Bakkhali or Mousuni Island?

মৌসুনি দ্বীপ একটি সমুদ্র সৈকত গন্তব্য, আমরা সবাই জানি। তবে এটি অন্য সব সমুদ্র সৈকত থেকে আলাদা। এটি একটি কুমারী দ্বীপ। তাই আপনি যদি সমুদ্র সৈকতের গন্তব্যে কিছুটা শান্তি ও প্রশান্তি খুঁজছেন, তাহলে আপনার চোখ বন্ধ করে মৌসুনি দ্বীপে বিশ্বাস করা উচিত।

Related Articles

Leave a Comment